বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন, কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং এর নাম জানেন না – এমন লোক পাওয়া কঠিন । মোটামুটি সবাই ফ্রিল্যান্সিং এর নাম শুনেছেন । তাই, “ফ্রিল্যান্সিং” শব্দটি আমাদের কাছে খুবই পরিচিত । এখন আমরা ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানার চেষ্টা করবো ।

ফ্রিল্যান্সিং কি?

ফ্রিল্যান্সিং বলতে বোঝায় মুক্ত পেশা । অর্থাৎ, কোন প্রতিষ্ঠানের অধীনে না কাজ করে, মুক্তভাবে কাজ করা – ই হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং । এখানে সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে আপনি অফিস এ না গিয়েই ঘরে বসে কাজ করতে পারবেন । আপনাকে কারও অধীনে কাজ করতে হবে না । আপনার যখন মন চাইবে কাজ করবেন, আর যখন মন চাইবে না কাজ করবেন না । আপনাকে বাঁধা দেওয়ার কেউ নেই । ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে অবশ্যই আপনাকে প্রথমে কোন না কোন কাজ জানতে হবে ।
আরও সহজভাবে বলতে গেলে, মনে করুন আপনার একটি ওয়েব সাইট দরকার । এখন আমি চাচ্ছেন কাউকে টাকা দিয়ে ওয়েবসাইট ডিজাইন করিয়ে নিতে । এখন আপনি একটি ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে বলবেন যে, আপনার একটা ওয়েবসাইট দরকার । তখন, যারা ওয়েবসাইট ডিজাইন করেন তারা আপনার কাজ করে দেওয়ার জন্য আবেদন করবেন । এরপর, আপনার যাকে পছন্দ হয় তাকে দিয়ে ওয়েবসাইট ডিজাইন করিয়ে নিলেন ।
যারা ওয়েবসাইট এ কাজ জমা দেন তাদের বলা হয় ক্লায়েন্ট । যেহেতু, আপনার ওয়েবসাইট দরকার আর আপনি কাজ জমা দিয়েছেন, এখানে আপনাকে বলা হবে ক্লায়েন্ট । যেই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনি কাজ দিয়েছেন সেই ওয়েবসাইটকে বলা হয় মার্কেটপ্লেস । আর কাজ করার আবেদনকে বলা হয় বিড করা । যারা আপনার কাজ করে দিবেন তাঁদের বলা হয় ফ্রিল্যান্সার ।

কি কি কাজ করে ফ্রিল্যান্সার হওয়া যায়

ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট: ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি ।
ওয়ার্ডপ্রেস: ওয়ার্ডপ্রেস, ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট, ওয়ার্ডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন ইত্যাদি ।
গ্রাফিক্স ডিজাইন: লোগো ডিজাইন, বিজনেস কার্ড ডিজাইন, ব্যানার ডিজাইন ইত্যাদি ।
অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট: আন্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট, আইফোন অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি ।
লেখালেখিঃ কন্টেন্ট রাইটিং, ব্লগ রাইটিং ইত্যাদি ।
মার্কেটিং: সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ই-মেইল মার্কেটিং ইত্যাদি ।
সফটওয়্যার: সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, গেম ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি ।
এছাড়া, আরও প্রচুর কাজ রয়েছে । পরবর্তীতে এসব ক্ষেত্র নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে ।

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবেন?

ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে অবশ্যই আপনাকে প্রথমে কোন না কোন কাজ জানতে হবে । কি কি কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করা যায়, আমি এই সম্পর্কে উপরে ধারণা দিয়েছি । এবার আপনাকে বাছাই করতে হবে আপনি কি কাজ করতে বেশি ভালবাসেন । যেমন, অনেকেই ওয়েবসাইট ডিজাইন এর প্রতি বেশি আগ্রহ থাকে, অনেকের মোবাইলের অ্যাপস এর প্রতি বেশি আগ্রহ থাকে, আবার কারও গ্রাফিক্স ডিজাইন এ আগ্রহ থাকে । আপনার যেই কাজের প্রতি বেশি আগ্রহ আপনি সেই কাজ শিখেই ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন । এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে, কোন কাজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি? ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস এ সকল কাজের ভাল চাহিদা রয়েছে । তবে, শর্ত হচ্ছে, আপনি যেই কাজ-ই শিখুন না কেন, আপনাকে খুব ভালভাবে কাজ শিখতে হবে । মনে করুন, আপনার ওয়েব ডিজাইন এ বেশি আগ্রহ । এক্ষেত্রে আপনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর উপর ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন ।
যদি আপনি কোন কাজ শিখতে চান, সেই কাজ শেখার জন্য ইন্টারনেট এ প্রচুর রিসোর্স পাবেন । যদি আপনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে চান তাহলে আপনি ইন্টারনেট থেকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর রিসোর্স সংগ্রহ করতে পারেন । যদি আপনি নিজে নিজে শিখতে না পারেন, তাহলে আপনি কোন প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন ।